সামাজিক ভীতি (Social Phobia)

Spread the love

সামাজিক ভীতি (Social Phobia)
মানুষের দুশ্চিন্তা কিংবা উদ্বিগ্নের ২য় বৃহত্তম কারন হল সামাজিক ভীতি (Social Phobia)। বিশ্বের প্রায় ১৪ % মানুষ জীবন ব্যাপী এই সমস্যায় আক্রান্ত। কিভাবে বুঝবেন আপনি সামাজিক ভীতি জনিত মানসিক সমস্যায় ভুগছেন? নীচের লক্ষণ গুলো খেয়াল করুন।
১। কোন সামাজিক পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে আপনি কি ভয় কিংবা দুশ্চিন্তায় পড়ে যান? যেমন ধরুন- নতুন কারও সাথে মিশতে কিংবা কথা বলতে,খেতে, কিংবা কারও সামনে কিছু বলতে দ্বিধা গ্রস্ত হয়ে পড়েন।
২। এমন কিছু করে ফেলতে পারি যা নিজেকে হাসির পাত্রে পরিণত করবে কিংবা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ে যেতে পারেন ভেবে ভয়ে থাকেন।
৩। এমন সামাজিক পরিস্থিতিতে সর্বদাই তীব্র উদ্বেগের সম্মুখীন হন কিংবা এড়িয়ে চলেন।
৪। ভয় কিংবা দুশ্চিন্তার মাত্রা সমাজ সংস্কৃতি ও সামাজিক পরিস্থিতি ভেদে পরিবর্তিত হয়।
৫। উপরোক্ত ভয় কিংবা দুশ্চিন্তা কোন প্রকার শারীরিক সমস্যা যেমন- পারকিন্সসন্স রোগ, obesity, আঘাত এর কারনে অথবা কোন প্রকার নেশা জাতীয় দ্রব্য সেবনের কারনে না হয়ে থাকলে এবং ৬ মাস যাবত এ সমস্যা চলতে থাকলে বুঝবেন আপনি সামাজিক ভীতি (Social Phobia) জনিত মানসিক সমস্যায় ভুগছেন।
এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পেশাদার মনোবিজ্ঞানীর সহায়তা নিতে পারেন।

Source: APA (2013). Anxiety Disorders, Social Anxiety Disorder (Social Phobia), Desk Reference to the Diagnostic Criteria From DSM-5™, pp 118.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.