শুচিবায়ু (OCD)-এর লক্ষণ, কারণ ও চিকিৎসা।

Spread the love

শুচিবায়ু শব্দটির সাথে আমরা কমবেশি সবাই পরিচিত । সাধারণত ব্যাপারটিকে অতিরিক্ত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বা খুঁতখুঁতে হিসেবে বিবেচনা করা হয় । তবে চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানে এই স্বভাবের তীব্রতর মাত্রাকে একটি মানসিক সমস্যা হিসাবে গণ্য করা হয় যা অবসেসিভ-কম্পালসিভ ডিসঅর্ডার বা ওসিডি নামে পরিচিত । শুচিবায়ু এমন একটি মানসিক সমস্যা বা রোগ যেখানে মানুষ একই চিন্তা বার বার করে অথবা একই কাজ বার বার করে যার ফলে ব্যক্তির মধ্যে অস্বস্তি তৈরি করে, ব্যক্তির সময়ের অপচয় হয়, দৈনন্দিন জীবনে কাজ কর্মে ব্যাঘাত ঘটে, অন্যের সাথে সম্পর্কের সমস্যা হয় ।

শুচিবায়ু সমস্যার দুটি অংশ আছে:
১. অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা (obsession)
২. পুনরাবৃত্তিমূলক আচরণ (compulsion)

১. অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা: অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা হলো এমন কিছু ভাবনা, তাড়না, চিন্তা, দৃশ্য, ছবি, কল্পনা যা ব্যক্তির জন্য প্রচন্ড অশান্তিকর ও অস্বস্তিদায়ক, যা ব্যক্তির মাঝে জোরপূর্বক বার বার আসে । ব্যক্তি জানে এই চিন্তা ভাবনাগুলো অযৌক্তিক কিন্তু তিনি চাইলেই মন থেকে বা মাথা থেকে সরাতে বা দূর করতে পারে না এবং এসব চিন্তা ব্যক্তির মধ্যে উত্তেজনা, উদ্বিগ্নতা, ভয়, অশান্তি, অপরাধবোধ, বিষণ্ণতা, ঘৃণাবোধ, পাপবোধ সৃষ্টি করে । ব্যক্তি না চাইলেও তার মধ্যে এই চিন্তাগুলো জোর করে আসে । এই তীব্র অশান্তি, অস্বস্তি থেকে মুক্তি পেতে ব্যক্তি কিছু অস্বাভাবিক আচরণ করে ।

২. পুনরাবৃত্তিমূলক আচরণ: পুনরাবৃত্তিমূলক আচরণ এক ধরণের আচরণ বা কাজ যা ব্যক্তি মধ্যে আসে অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা থেকে এবং ব্যক্তি এই আচরণ করার মাধ্যমে তার দুশ্চিন্তা থেকে সাময়িকভাবে মুক্তি লাভ করে ।

অনিয়ন্ত্রিত চিন্তা (Obsession)-এর লক্ষণ বা উপসর্গ:

1. Contamination Obsession বা রোগে আক্রান্ত হবার ভয়: যেমন– প্রস্রাব, মল, রক্ত, কুকুরের লালা, জীবাণু, আঠালো পদার্থ, পোকামাকড় ইত্যাদি দ্বারা অসুখ হবার ভয় ।যেমন –জলাতঙ্ক, AIDS, Sexually Transmitted Disease etc.

2. Hording, Saving and Collecting Obsession: অপ্রয়োজনীয় সকল জিনিস জমিয়ে রাখার এবং ফাঁকা স্থানে অস্বস্তিবোধ করে এবং তা পূরণের জন্য তাড়না অনুভব করে ।

3. Ordering Obsession: বাড়ির জিনিসপত্র নির্দিষ্টভাবে বা নিয়ম অনুসারে সাজিয়ে রাখতে হবে এমন মনে করে । যেমন- থালাবাসন, বই, কাপড় ,পড়ার টেবিল, এমনকি বাসায় প্রবেশের সময় নির্দিষ্টভাবে প্রবেশ করতে হবে বা কোন জিনিস একটি নিময় অনুসরণ করে স্পর্শ করতে হবে । হাতের লেখায় অতিরিক্ত মনোযোগ দেয় ।

4. Religious Obsession: ধর্মবিরোধী চিন্তা মাথায় আসে এবং মনে হয় খারাপ কথা বলে দিবে, ধর্মীয়গ্রন্থকে লাথি মারবে বা মনে হয় তার উপর প্রস্রাব করে দিচ্ছে ।
5. Somatic Obsession: রোগ হবার ভয় কাজ করে বা নিজের চেহারা নিয়ে খুঁতখুঁত করে বা নিজের চেহারার প্রতি নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া কাজ করে ।

6. Aggression Obsession: নিজের বা অন্যের ক্ষতি করার চিন্তা মাথায় আসে । সবকিছুতে জয়ী হতে হবে এমন চিন্তা আসে । এমনকি ছোট বাচ্চার সাথেও জয়ী হতে চাইবে ।

7. Sexual Obsession: যৌন চিন্তা, ছবি, তাড়না, আসে । সামনে মহিলা বা পুরুষ থাকলে তাদের শরীরে স্পর্শ করে ফেলবে বলে মনে হয় এবং তাড়না অনুভব করে ।
8. Miscellaneous Obsession: কোন কিছু মনে রাখার বা জানার তাড়না অনুভব করে যেমন- শব্দ, স্লোগান, নম্বর, নাম, ঘটনা ইত্যাদি । সব সময় ভয়ে থাকে খারাপ কিছু মুখ দিয়ে বলে ফেলবে । কিছু কিছু শব্দে অল্পতেই বিরক্ত হয়ে যায় । যেমন- ঘড়ির টিকটিক শব্দ, ঝনঝন শব্দ, উচ্চ শব্দ ইত্যাদি । অনেকে আবার কিছু কিছু সংখ্যাকে সৌভাগ্য বা দূর্ভাগ্য (lucky and unlucky) হিসেবে ধরেন ।

পুনরাবৃত্তিমূলক আচরণ (Compulsions)-এর লক্ষণ বা উপসর্গ:

1. Cleaning and Washing Compulsions: বারবার হাত, পা, কাপড়, প্লেট, বাথরুম ধুয়া এবং একটি নির্দিষ্ট উপায়ে পরিষ্কার করে ।

2. Checking Compulsions: বারবার পরীক্ষা করে নিশ্চিত হতে চায় । পরীক্ষা করার কিছুক্ষণ পর আবারও নিশ্চিত হওয়ার তাড়না কাজ করে এবং আবার পরীক্ষা করে । যেমন- দরজা, জানালা, পানির ট্যাব, গ্যাস চুলা, পকেট, তালা, সুইচ, মানিব্যাগ ইত্যাদি ।
3. Hoarding, Saving, and Collecting Compulsions: এক্ষেত্রে ব্যক্তি অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রগুলো জমিয়ে রাখে যার ফলে ঘরে চলা ফেরা করা কষ্ট হয়ে যায় ।

4. Repeating, Counting and Ordering Compulsions: একই শব্দ বা নম্বর বা দোয়া বার বার পড়ে । বারবার জিনিসপত্র গণনা করে । থালা-বাসন, বই, কাপড় ,পড়ার টেবিল, এমনকি বাসার প্রবেশের সময় নির্দিষ্টভাবে প্রবেশ করে বা কোন জিনিস একটি নিময় অনুসারে স্পর্শ করে ।

5. Somatic Compulsions: বারবার নিজের শরীর বারবার পরীক্ষা করে কোথাও কোন রোগের চিহ্ন আছে কি না । স্বাস্থ্য নিয়ে মাত্রাতীত সতর্ক আচরণ করে । যেমন – ডাক্তার দেখানো, রক্ত চাপ মাপা, ইত্যাদি ।

6. Miscellaneous Compulsions: মুখ দিয়ে খারাপ কথা বললে সাথে সাথে একটা ভাল কথা বলে । মনে করে যে খারাপের পরে ভাল কথা বললে দুটা কাটাকাটি হয়ে যাবে । কোন খারাপ চিন্তা মাথায় আসলে তওবা করে কিংবা পাপমোচনের জন্য নির্দিষ্ট রীতি অনুসরণ করে ।

7. OCD Related Compulsions: অনেকে বারবার জিনিসপত্র কিনে বা বাজার করে ঘর ভর্তি করে ফেলে । মাথার বা শরীরের অন্য অঙ্গের চুল ছিঁড়তে থাকে ।

OCD সমস্যার কারণ :

১. Genetic বা বংশগত কারণ
২. psychosoical বা মনোসামাজিক কারণ
৩. Environmental বা পরিবেশগত কারণ (সাধারণত Stressful Events এর পরে হয়)
৪. Neuro-Structural বা মস্তিস্কের গঠনগত কারণ (Basal Ganglia বড় হয়ে যায়)
৫. Cortical Atrphy বা মস্তিস্কের Gray Matter কমে যায়
৬. Neuro Chemical (serotonin নামক Neurotransmitter এর সমস্যাজনিত কারণে হয়)

OCD সমস্যার চিকিৎসা :

ক. মনোরোগ বিশেষজ্ঞ (Psychiatrist)-এর পরামর্শ মোতাবেক ঔষধ সেবন

খ. প্রফেশনাল মনোবিজ্ঞানীর কাছ থেকে কগনিটিভ বিহেভিয়র থেরাপি বা সাইকোথেরাপি নেয়া।

লেখক- আসাদুজ্জামান মণ্ডল, এসিসটেন্ট ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট, ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ফোন – 01902232380

ব্যক্তিগত সাইকোথেরাপি বা কাউন্সেলিং/ শিশুদের কাউন্সেলিং(child psychotherapy) /পারিবারিক কাউন্সেলিং/couple কাউন্সেলিং/Face to face individual counseling/online counseling and psychotherapy ও অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য 01902232380 এই নম্বরে কল করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.