মস্তিষ্কের ক্ষমতা

Spread the love

মানুষের সবচেয়ে শক্তিশালী অঙ্গ হল তার মস্তিষ্ক। চলুন জেনে নেই কতটা শক্তিশালী এই মস্তিস্ক। বিজ্ঞানীরা দাবি করেন আমাদের মস্তিষ্ক দেখতে অনেকটা ভাজ করা একটি বড় মাশরুমের মত এবং এর ওজন মাত্র ১.৫ কেজি কিন্তু এর ক্ষমতা সাংঘাতিক।  

-এই বিশ্ব জগতে মানুষের জানা যত বস্তু রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে সুক্ষ্ম ও জটিল বস্তু হল এই মানব মস্তিষ্ক।  

-বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী মানুষ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র হল মস্তিষ্ক।

-সারা বিশ্বের সব মোবাইল ফোন একদিনে যে পরিমাণ বৈদ্যুতিক ইম্পালস উৎপাদন করে তার চাইতেও বেশি বৈদ্যুতিক ইম্পালস তৈরি করতে পারে আমাদের মস্তিষ্ক যা দিয়ে ১২ ওয়াটের একটি লাইট জ্বালানো সম্ভব।

-আমাদের শরীরের মোট ওজনের মাত্র ২% হল মস্তিষ্কের ওজন কিন্তু, শরীরের মোট শক্তির ২০% খরচ করে মস্তিষ্ক নিজেই যার পরিমাণ ২৩০ ক্যালরি।  সেই সাথে, রক্তের মোট অক্সিজেনের ২০% অক্সিজেন ব্যবহার করে এই মস্তিষ্ক।

-আপনার মস্তিষ্ক স্নায়ুবিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে একমুহূর্তে দশ লক্ষ্য তথ্য গ্রহণ, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণ, এবং তার প্রেক্ষিতে শরীরের বিভিন্ন অংশে নির্দেশনা প্রেরণ করতে সক্ষম।

মস্তিষ্কের কিছু অজানা মজার তথ্য

১।  মাত্র ৫ থেকে ১০ মিনিট অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ থাকলে মস্তিষ্ক স্থায়ী ভাবে নষ্ট হয়ে যায়।

২। বিজ্ঞানীরা অতি সাম্প্রতি দাবি করেছেন ব্যক্তিভেদে ৪৯ বৎসর বয়স পর্যন্ত মস্তিকের বিকাশ হয়।

৩। যুদ্ধের সময় সৈন্যরা মস্তিষ্কে যেরকম চাপ অনুভব করেন, কলহপূর্ণ পরিবারে একটি শিশু মস্তিষ্কে অনুরুপ চাপ অনুভব করে।

৪। ভুলে যাওয়া মস্তিষ্কের জন্য ইতিবাচকঃ কেননা, অপ্রয়োজনীয় তথ্য মুছে ফেলে স্নায়ুবিক প্রক্রিয়া মস্তিষ্কের নমনীয়তা (প্লাস্টিসিটি) ধরে রাখে।    

৫। মস্তিষ্ক প্রত্যাখ্যান কে শারীরিক বেদনা মতই বিবেচনা করে।

৬। পুরুষদের মস্তিষ্ক মহিলাদের মস্তিষ্কের তুলনায় গড়ে ৮ – ১৩% পর্যন্ত বড় হয়ে থাকে।  

৭। মানব মস্তিষ্ক ১০০ বিলিয়ন নিউরন এবং ১ ট্রিলিয়ন গিলিয়া কোষ দিয়ে তৈরি ।

৮। আপনি যখন নতুন কিছু শেখেন তখনই মস্তিষ্কের গঠনের পরিবর্তন হয়।

৯। আইনস্টাইনের মৃত্যুরপর তার ময়নাতদন্তকারি প্যাথলজিস্ট তার মস্তিষ্ক চুরি করে একটি জারে ২০ বৎসর  যাবত সংরক্ষণ করেন।

১০।  আপনার মস্তিষ্কে দিনে প্রায় ৭০,০০০ চিন্তার উদয় হয় অন্যভাবে বলা যায়, একজন মানুষের মাথায় দিনে প্রায় ৭০,০০০ চিন্তা আসে।  

১১। আমাদের মস্তিষ্কের ধারণ ক্ষমতা এতটাই পর্যাপ্ত যে, তাতে প্রায় ৩ মিলিয়ন ঘণ্টা ভিডিও ধারণ করে রাখা সম্ভব।

১২। চোখে কোন আলো পড়লে তা মস্তিষ্কে পৌছাতে সময় লাগে ০.২ সেকেন্ড।  

(তথ্য সুত্রঃ www.factslides.com & Harrison, J. & Hobbs, M.( 2010) Brain Training, New York: DK Publishing)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.